টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন তথ্য

টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন তথ্য

বংলাদেশের ৬৪ জেলার মধ্যে টাঙ্গাইল জেলাটি অন্যতম। এখানে রয়েছে নানা ধরনের ঐতিহ্য। টাঙ্গাইলের শাড়ী ও চমচম সারা দেশে পরিচিত। এছাড়াও রয়েছে বিখ্যাত স্থপনাত্য। নিচে টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন তথ্য আলোচনা করা হল:

আয়তন

  • ৩৪১৪.৩৯

জেলাকোড

  • টাঙ্গাইল ৩৭

নামকরনের ইতিহাস

টাঙ্গাইলের নামকরণ বিয়য়ে রয়েছে অনেকজনশ্রুতি ও নানা মতামত। ১৭৭৮ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত রেনেল তাঁর মানচিত্রে এ সম্পূর্ণ অঞ্চলকেই আটিয়া বলে দেখিয়েছেন। ১৮৬৬ খ্রিস্টাব্দের আগে টাঙ্গাইল নামে কোনো স্বতন্ত্র স্থানের পরিচয় পাওয়া যায না। টাঙ্গাইল নামটি পরিচিত লাভ করে ১৫ নবেম্বর ১৮৭০ খ্রিস্টাব্দে মহকুমা সদর দপ্তর আটিয়া থেকে টাঙ্গাইলে স্থনান্তরের সময় থেকে। টাঙ্গাইলের ইতিহরস প্রণেতা খন্দকার আব্দুল সাহেবের মতে, ইংরেজ আমলে এদেশের লোকেরা উচু শব্দের পরিবর্তে ‘টান’ শব্দই ব্যবহার করতে অভ্যস্ত ছেল বেশি। কখনো টাঙ্গাইল অঞ্চল ‘টান’ শব্দের প্রচলন আছে। এই টানের সাথে আইল শব্দটি যুক্ত হয়ে হয়েছিল টান আইল। আর সেই টান আইলটি রূপান্তরিত হয়েছে টাঙ্গাইলে।

টাঙ্গাইলের নামকরণ নিয়ে আরও বিভিন্নজনে বিবিন্ন সময়ে নানা মত প্রকাশ করেছেন। কারো কারো মতে ব্রিটিশ শাসনামলে মোগল প্রশাসন কেন্দ্র আটিয়াকে আশ্রয় করে যখন এই অঞ্চল জম-জমাট হয়ে উঠে। সে সময়ে ঘোাড়ার গাড়ি ছিলো যাতায়াতের  একমাত্র বাহন, যাকে বর্তমানে স্থানীয় লোকেরা বলত ‘টাঙ্গা’। বর্তমান সময়ের মাঝামাঝি সময় পর্যন্তও এ অঞ্চলের টাঙ্গা গাড়ির চলাচল স্থল পথে সর্বত্র।

আল শব্দটির কথা এ প্রসঙ্গে চলে আসে। বর্তমানে অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানের নামের সাথে এই আল শব্দটির ব্যবহরা লক্ষ্য করা যায়। আল শব্দটির অর্থ সম্ভবত সীমা নির্দেশক যার স্থানীয় উচ্চারন আইল। একটি স্থানকে যে সিমানা দিয়ে বাঁধা হয় তাকেই আইল বলে। টাঙ্গা ওয়ালেদের বাসস্থানের মীমানাকে ‘টাঙ্গা+আইল’ এভাবে যোগ করে হয়েছে ‘টাঙ্গাইল’ এমতটি অনেকে পোষণ করেন। আলি শব্দটি কৃষিজমির সঙ্গে সম্পৃক্ত।

এই শব্দটি আঞ্চলিক ভাবে বহুল ব্যবহৃত শব্দ। জেলার ভূ-প্রাকৃতিক অনুসারে স্বাভাবিক ভাবে এর ভুমি উঁচু এবং ঢালু। স্থানীয়ভাবে যার সমার্থক শব্দ হলো টান। তাই এই ভূমিরূপে কারণেই এ অঞ্চলকে হয়তো পূর্বে ‘টান আইল’ বলা হত। যা পরিবর্তীত হয়ে টাঙ্গাইল হয়েছে।

বিখ্যাত খাবার

  • চমচম

বিখ্যাত স্থান

  • শাহ্ আদম কাশ্মিরির মাজার
  • পরীর দালান
  • আতিয়া মসজিদ
  • খামারপাড়া মসজিদ
  • ঝরোকা
  • সাগদীঘি
  • গুপ্তবৃন্দাবন
  • পাকুটিয় আশ্রম
  • ভাতেশ্বরী হোমস
  • মহেড়া জমিদারবাড়ি/ পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার
  • মির্জাপুর ক্যাডট কলেজ
  • পাকুল্লা মসজিদ
  • নাগরপুর জমিদারবাড়ি
  • পুন্ডরীকাক্ষ হাসপাতাল
  • উজেন্দ্র সরোব
  • গয়হাটার মঠ
  • তেবাড়িয়া জামে মসজিদ
  • পাকুটিয়া জমিদারবাড়ি
  • বঙ্গবন্ধু সেতু
  • এলেঙ্গা রিসোর্ট
  • যমুনা রিসোর্ট
  • কাদিমহামজানি মসজিদ
  • ঔতিহ্যবাহী পোড়াবাড়ি
  • সন্তোষ
  • করটিয়া সা’দত কলেজ
  • বিন্দুবাসিনী বিদ্যালয়
  • মধুপুর জাতীয় উদ্যান
  • পীরগাছা রাবারবাগান
  • ভূঞাপুরে নীলকুঠি
  • শিয়ালকোল বন্দর
  • ধনবাড়ি মসজিদ ও নবাব প্যালেস
  • নথখোলা স্মৃতিসৌধ
  • বাসুলিয়া
  • রায়বাড়ী
  • কোকিলা পাবর সঋতিসৌধ
  • মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ
  • মোকা জমিদার বাড়ী
  • কৃত্তিম চিড়িয়াখানা

বিখ্যাত বস্ত্র

  • টাংঙ্গাইল শড়ি

জেলার উপজেলাসমূহ

  • টাঙ্গাই সদর উপজেলা
  • কালিহাতি উপজেলা
  • ঘাটাইল উপজেলা
  • বাসাইল উপজেলা
  • গোপালপুর উপজেলা
  • মির্জাপুর উপজেলা
  • ভূঞাপুর উপজেলা
  • নাগরপুর উপজেলা
  • মধুপুর উপজেলা
  • সখিপুর উপজেলা
  • দেলদুয়ার উপজেলা
  • ধনবাড়ী উপজেলা

টাঙ্গাইল জেলার পোস্ট কোডসমূহ

নং জেলা থানা উপঅফিস পোস্ট কোড
টাঙ্গাইল বাসাইল বাসাইল ১৯২০
ভূঞাপুর ভূঞাপুর ১৬৬০
দেলদুয়ার দেলদুয়ার ১৯১০
দেলদুয়ার ইলাসিন ১৯১৩
দেলদুয়ার হিংসা নগর ১৯১৪
দেলদুয়ার জাঙ্গালিয়া ১৯১১
দেলদুয়ার লউহাটি ১৯১৫
দেলদুয়ার পাঠারাইল ১৯১২
ঘাটাইল ডি পাকুটিয়া ১৯৮২
১০ ঘাটাইল ধলপাড়া ১৯৮৩
১১ ঘাটাইল ঘাটাইল ১৯৮০
১২ ঘাটাইল লোহানী ১৯৮৪
১৩ ঘাটাইল জাহিদগজ্ঞ ১৯৮১
১৪ গোপালপুর গোপালপুর ১৯৯০
১৫ গোপালপুর হেমনগর ১৯৯২
১৬ গোপালপুর ঝোওয়াইল ১৯৯১
১৭ গোপালপুর চাতুরিয়া ১৯৯১
১৮ কালিহাতী বাল্লাবাজার ১৯৭৩
১৯ কালিহাতী ইলিংগা ১৯৭৪
২০ কালিহাতী কালিহাতী ১৯৭০
২১ কালিহাতী নগরবাড়ী ১৯৭৭
২২ কালিহাতী নগরবাড়ী তাই ১৯৭৬
২৩ কালিহাতী গাগবাড়ী ১৯৭২
২৪ কালিহাতী পালিশা ১৯৭৫
২৫ কালিহাতী রাজাফাইর ১৯৭১
২৬ কাশকাওলিয়া কাশকাওলিয়া ১৯৩০
২৭ মধুপুর ধবাড়ি ১৯৯৭
২৮ মধুপুর মধুপুর ১৯৯৬
২৯ মির্জাপুর গড়াই ১৯৪১
৩০ মির্জাপুর জারমুকি ১৯৪৪
৩১ মির্জাপুর এম.সি.কলেজ ১৯৪২
৩২ মির্জাপুর মির্জাপুর ১৯৪০
৩৩ মির্জাপুর মহেরা ১৯৪৫
৩৪ মির্জাপুর ওয়ারী পাইকপাড়া ১৯৪৩
৩৫ নাগরপুর ধুবুরিয়া ১৯৩৭
৩৬ নাগরপুর নাগরপুর ১৯৩৬
৩৭ নাগরপুর সলিমাবাদ ১৯৩৮
৩৮ নাগরপুর কচুয়া ১৯৫১
৩৯ টাঙ্গাইল সদর পুড়াবাড়ি ১৯০৪
৪০ টাঙ্গাইল সদর কাগমারি ১৯০১
৪১ টাঙ্গাইল সদর করোতিয়া ১৯০৩
৪২ সখীপুর সখীপুর ১৯৫০
৪৩ টাঙ্গাইল সদর সন্তোষ ১৯০২
৪৪ টাঙ্গাইল সদর টাঙ্গাইল সদর ১৯০০

টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কিত আলোচনা আজকে এখানেই শেষ করছি। আরও এমন তথ্য পেতে আমদের সাথেই থাকুন।

সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন।

Author: admin

2 thoughts on “টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন তথ্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *